মাতৃভাষা বাংলায় ট্রিপল ই ইঞ্জিনিয়ারিং

অ্যামিটার (Ammeter)

এ্যামিটারের সাহায্যে কারেন্ট পরিমাপ করা হয়। কারেন্ট হচ্ছে ইলেকট্রনের প্রবাহ যার একক এম্পিয়ার। তাই বলা যায়, যে যন্ত্র কারেন্টের প্রবাহকে এম্পিয়ার এককে পরিমাপ করে তাই এ্যামিটার।

আদর্শ এ্যামিটারের ইন্টারনাল রেজিস্ট্যন্স নেই। কিন্তু বাস্তবে এ্যামিটারের সামান্য ইন্টারনাল রেজিস্ট্যন্স আছে। এ্যামিটারের রেঞ্জ এই রেজিস্ট্যান্সের উপর নির্ভর করে।

অ্যামিটার সিম্বল
অ্যামিটার সিম্বল

এ্যামিটারের কানেকশন (Ammeter Connection) :

এ্যামিটার সার্কিটে সিরিজে কানেকশন দিতে হয়। সার্কিটে প্রবাহিত সব ইলেকট্রন এ্যামিটারের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়। এর ইন্টারনাল রেজিস্ট্যান্স থাকার কারণে এতে ভোল্টেজ ড্রপ হয় এবং কিছু পাওয়ার লস হয়।

অ্যামিটারের কানেকশন
অ্যামিটারের কানেকশন

অ্যামিটারের পাওয়ার লস (Ammeter Power Loss) :

অ্যামিটারের মিটারের রেজিস্ট্যান্স RA,
অ্যামিটারে প্রবাহিত কারেন্ট I
হলে,
পাওয়ার লস Ww= I2RA ওয়াট
তাই অ্যামিটারের রেজিস্টেন্স যত কম হবে, পাওয়ার লস তত কম হবে।

অ্যামিটারের প্রকারভেদ (Types of Ammeter):

  • মুভিং আয়রণ অ্যামিটার (Moving Iron Ammeter)
    • এ্যাট্রাকশন অ্যামিটার (Attraction Ammeter)
    • রিপালসন অ্যামিটার (Repulsion Ammeter)
  • মুভিং কয়েল অ্যামিটার (Moving Coil Ammeter)
    • পার্মানেন্ট ম্যাগনেট অ্যামিটার (Parmanent Magnet Ammeter)
    • ডায়নামো মিটার অ্যামিটার (Dynamo Meter Ammeter)
  • মুভিং ম্যাগনেট (Moving Magnet Ammeter)
  • হট ওয়্যার অ্যামিটার (Hot Wire Ammeter)
  • ইলেকট্রো স্ট্যাটিক অ্যামিটার (Electrostatic Ammeter)
  • ইন্ডাকশন অ্যামিটার (Induction Ammeter)
  • রেকটিফায়ার অ্যামিটার (Rectifier Ammeter)
  • ডিজিটাল এ্যামিটার (Digital Ammeter)
  • ক্লাম্প এ্যামিটার (Clamp Ammeter)

মুভিং আয়রণ অ্যামিটার (Moving Iron Ammeter)

মুভিং আয়রণ অ্যামিটারে স্থির কয়েলের মধ্যদিয়ে কারেন্ট প্রবাহিত হয়। এই কারেন্ট প্রবাহের ফলে স্থাপিত আয়রণ আকৃষ্ট হয়।
এর সাহায্যে এ.সি. এবং ডি.সি. উভয়ই পরিমাপ করা যায়।

মুভিং আয়রণ অ্যামিটারের মূলনীতি
মুভিং আয়রণ অ্যামিটারের মূলনীতি

মুভিং কয়েল এ্যামিটার (Moving Coil Ammeter):

এই এ্যামিটারে পার্মানেন্ট ম্যাগনেটের মাঝে মুভিং কয়েলের ডিফ্লেকশনের মাধ্যমে কারেন্ট পরিমাপ করা হয়।

মুভিং কয়েল এ্যামিটারের মূলনীতি
মুভিং কয়েল এ্যামিটারের মূলনীতি

পার্মানেন্ট ম্যাগনেট মুভিং কয়েল এ্যামিটার (Permanent Magnet Moving Coil or PMMC Ammeter):

এই মিটারে পার্মানেন্ট ম্যাগনেট ব্যবহার করা হয় যার মধ্যে কয়েল স্থাপন করা হয়। ইলেকট্রন প্রবাহের সাথে এই কয়েলে ডিফ্লেকশন পাওয়া যায়।
পার্মানেন্ট ম্যাগনেট মুভিং কয়েল এ্যামিটার দিয়ে শুধু মাত্র ডি.সি. পরিমাপ করা যায়।

ডায়নামো-মিটার এ্যামিটার (Dynamo Meter Ammeter):

এর সাহায্যে এ.সি. এবং ডি.সি. উভয়ই পরিমাপ করা যায়। এর একুরেসি তুলনামূলক ভালো।

মুভিং ম্যাগনেট এ্যামিটার (Moving Magnet Ammeter):

এই মিটারে কয়েল মিটার কেসের সাথে আটকানো থাকে এবং পার্মানেন্ট ম্যাগনেট নির্দেশক কাটাকে ঘুরায়। এই মিটার মুভিং কয়েল মিটারের চেয়ে অনেক বেশি কারেন্ট পরিমাপ করতে পারে।

হট ওয়্যার এ্যামিটার (Hot Wire Ammeter):

এই মিটারে কারেন্ট একটি তারের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়, এতে তারটি উত্তপ্ত হয় এবং প্রসারিত হয়। এই মিটারের একুরেসি কম এবং পরিমাপ পেতেও বেশ সময় প্রয়োজন হয়।

রেকটিফায়ার এ্যামিটার (Rectifier Ammeter):

এই মিটারে সাহায্যে এ.সি. কে রেকটিফাই করে পার্মানেন্ট ম্যাগনেট মুভিং কয়েলের মাধ্যমে কারেন্ট পরিমাপ করা হয়।

ডিজিটাল এ্যামিটার (Digital Ammeter):

ডিজিটাল এ্যামিটারের পাঠ ডিজিটাল ডিসপ্লেতে পাওয়া যায়। এই মিটার অনেক সূক্ষ্ম মান প্রদান করে।

ক্লাম্প এ্যামিটার (Clamp Ammeter) :

ক্লাম্প এ্যামিটার পরিবাহী তারের সাথে ইলেকট্রিক্যাল সংযোগ ছাড়াই কারেন্ট পরিমাপ করতে পারে। এর সাহায্যে অনেক উচ্চ মানের কারেন্ট পরিমাপ সম্ভব।

ক্লাম্প এ্যামিটারের মূলনীতি
ক্লাম্প এ্যামিটারের মূলনীতি

এ্যামিটার শান্ট (Ammeter Shunt) :

মূলত এ্যামিটারের মুভিং কয়েলের মধ্য দিয়ে কারেন্ট প্রবাহিত হওয়ার ফলে এর ডিফ্লেকশন হয় এবং মিটারের পাঠ পাওয়া যায়। কিন্তু এই কয়েলের মধ্য দিয়ে বেশি পরিমাণ কারেন্ট প্রবাহিত হতে পারে না। এজন্য এ্যামিটারের প্যারালালে একটি রেজিস্টর সংযুক্ত করা হয়। এই রেজিস্টরকে এ্যামিটার শান্ট বলে।

এ্যামিটার শান্ট
এ্যামিটার শান্ট

এ্যামিটার শান্ট মিটার কেসের মধ্যেই সংযুক্ত থাকে। এ্যামিটার শান্টের সাপেক্ষ মিটার কারেন্টের মান দেখায়।

এ্যামিটারে তাপমাত্রার প্রভাব (Effect of Temperature in Ammeter) :

এ্যামিটার পারিপার্শ্বিক তাপমাত্রার প্রতি অনেক সংবেদনশীল। তাপমাত্রা পরিবর্তনে এর পাঠ কমবেশি হয়। এই ত্রুটি কমানোর জন্য মিটারের সিরিজে সোয়াম্পিং রেজিস্টেন্স (Swamping Resistance) সংযোগ করা হয়।
এই সোয়াম্পিং রেজিস্টেন্সের তাপমাত্রা সহগ (temperature coefficient) শূন্য।